সিটি ও সদর এলাকা অঘোষিত লকডাউন

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ২ জনের মৃত্যু ও ১১ জনের করোনায় আক্রান্ত শনাক্তের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সিটি ও সদর উপজেলা এলাকা (সদর, ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) পুরোপুরি অঘোষিত লকডাউন থাকবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন।

ওই সব এলাকায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাসা থেকে বের হতে পারবে না। বিনা প্রয়োজনে কিংবা অযথা কেউ বের হলে অথবা ঘোরাঘুরি করলে কঠোর পদক্ষেপ নেবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

রোববার রাত আটটায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে নারায়ণগঞ্জের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি ও নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এর আগে দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী করোনা পরিস্থিতিতে উদ্বেগ জানান। পরে সিটি এলাকায় জরুরি ভিত্তিতে লকডাউন/কারফিউ জারির জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে এ–সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি দেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আমিন।

today govt job circular

জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন মেয়র আইভী, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, জেলা সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, সেনাবাহিনীর লে. কর্নেল মোত্তাকিম, র‍্যাব-১১ অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সেলিম রেজা প্রমুখ।

সভায় নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এই পরিস্থিতিতে করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জসিম উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, সিটি ও সদর উপজেলা এলাকায় কেউ বাসা থেকে বের হতে পারবে না, বাইরে থেকেও কেউ আসতে পারবে না। রিকশা ছাড়া যাত্রী বহনকারী কোনো ধরনের যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। শুধু খাদ্য বহনকারী গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স চলাচল করতে পারবে। এ ছাড়া যেসব পোশাক কারখানা খুলেছে, সেগুলো শ্রমিকদের বেতন–ভাতা দেওয়ার পর বন্ধ করে দেওয়ার জন্য মালিকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। আইইডিসিআরের পরামর্শ অনুযায়ী সিটি করপোরেশন এলাকা এবং সদর উপজেলা এলাকা অঘোষিত লকডাউন থাকবে।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, ‘আইইডিসিআরের পরামর্শ অনুযায়ী ওই সব এলাকা অঘোষিত লকডাউন করা হয়েছে। কেউ এই আইন লঙ্ঘন করলে আমরা অ্যাকশনে যাব।’

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতিতে এক নারীসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ নারীসহ মোট ১১ জন। লকডাউন করা হয়েছে চারটি এলাকার সহস্রাধিক পরিবারকে।

About help desk

Check Also

করোনাভাইরাস: বাংলাদেশে নতুন ৩০৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত, মারা গেছে ৯ জন

বাংলাদেশে নতুন করে ৩০৯ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশে এনিয়ে মোট শনাক্ত হওয়া কোভিড-১৯ …